বৃহস্পতিবার, ২৬ নভেম্বর ২০২০, ০৪:১০ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি....
আপনার প্রতিষ্ঠানের বিশ্বব্যাপী প্রচারের জন্য বিজ্ঞাপণ দিন * আপনার চোখে পড়া অথবা জানা খবরগুলোও আমাদের কাছে গুরুত্বর্পূণ তাই সরাসরি জানাতে ই-মেইল করুনঃ ‍simantabarta@gmail.com * আপনার পাঠানো তথ্যর বস্তুনিষ্ঠতা যাচাই করে আমরা তা প্রকাশ করব * সারাদেশে জেলা, উপজেলা, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় ও বিভাগীর পর্যায়ে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে * আগ্রহীরা যোগাযোগ করুন * মোবাইলঃ 01909088904।
স্বেচ্ছাসবক লীগ নেতা হত্যার লোমহর্ষক জবানবন্দি

স্বেচ্ছাসবক লীগ নেতা হত্যার লোমহর্ষক জবানবন্দি

ময়মনসিংহ জেলার গৌরীপুর উপজেলার স্বেচ্ছাসবক লীগের সাধারণ সম্পাদক মাসুদুর রহমান শুভ্র হত্যাকাণ্ডের অন্যতম আসামি খায়রুল (চৌকিদার)কে গ্রেপ্তার করেছে ডিবি পুলিশ। শুক্রবার (২৩ অক্টোবর) ডিবি পুলিশের ওসি শাহ কামালের নেতৃত্বে একটি টিম নেত্রকোনার মোহনগঞ্জ এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করে।
গ্রেপ্তারকৃত খায়রুল হত্যাকাণ্ডে তার জরিত থাকা এবং ঘটনার বর্ণনা দিয়ে শনিবার (২৪ অক্টোবর) আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। এর আগে এই হত্যাকাণ্ডে আরও চার জনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতরা হলো উপজেলা বিএনপি”র একাংশের যুগ্ম আহ্বায়ক ও মইলাকান্দা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রিয়াদুজ্জামান রিয়াদ, জাহাঙ্গীর, রাসেল ও মুজিবুর। পুলিশের একটি সুত্র জানায় মামলাটি ডিবি পুলিশের কাছে হস্তান্তর করার ২৪ ঘন্টার মধ্যে হত্যাকাণ্ডের অন্যতম হোতা খায়রুল চৌকিদারকে গ্রেপ্তার এবং গ্রেপ্তারকৃত খায়রুল আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিলো।
ময়মনসিংহ জেলা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) অফিসার ইনচার্জ শাহ কামাল আকন্দ জানান, আলোচিত এই হত্যাকাণ্ডের মামলাটি ঘটনাস্থল পরিদর্শন এবং তথ্য প্রযুক্তির সহযোগিতায় আসামিদের গ্রেপ্তার অভিযান শুরু করি।
উল্লেখ্য, গত ১৭ অক্টোবর শনিবার রাতে গৌরীপুর পৌরসভার পান মহলে মেয়র প্রার্থী মাসুদুর রহমান শুভ্র রাত ১০ টার দিকে গনসংযোগ শেষে আব্দুর রহিমের চায়ের দোকানে নির্বাচনী আলাপচারিতার সময় একদল সন্ত্রাসী অতর্কিত ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে মারাত্মকভাবে জখম করে ফেলে রেখে চলে যায়। এ সময় তার দুই কর্মীও আল আমীন ও জাহাঙ্গীর নামে আরো দুই জন আহত হয়। এ ঘটনায় নিহত শুভ্রর ছোট ভাই আবিদুর রহমান প্রান্ত বাদী হয়ে ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে এবং ৭/৮ অজ্ঞাত আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করে।
এদিকে গত ২২ অক্টোবর আলোচিত এই হত্যামামলাটি ডিবি পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। মামলাটির তদন্তভার পাওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে ডিবি পুলিশের চৌকস, দায়িত্বশীল ও দক্ষ পুলিশ পরিদর্শক ওসি শাহ কামাল আকন্দ একটি টিম নিয়ে অভিযানে নামেন। অভিযানে নেত্রকোনা জেলার মোহনগঞ্জ ফাগুয়া হাওড় এলাকা থেকে শুক্রবার ভোরে হত্যাকাণ্ডে সরাসরি অংশগ্রহণকারী আসামি খায়রুলকে গ্রেপ্তার করে।
ওসি আরও জানান গ্রেপ্তারকৃত খায়রুলকে শনিবার আদালতে পাঠানো হলে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মাহাবুবা আক্তারের কাছে হত্যাকাণ্ডের লোমহর্ষক বর্ণনা দিয়ে ১৬৪ ধারায় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি প্রদান করেন। এর আগে পুলিশি জিজ্ঞাসাবাদেও খায়রুল হত্যাকাণ্ডের বিশদ বর্ণনা দিয়ে নিজের জরিত থাকা এবং হত্যাকাণ্ডে অংশ নেয়া অন্যান্যদের তথ্য প্রকাশ করে।
এ হত্যাকাণ্ডে গ্রেপ্তারকৃত মইলাকান্দা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান রিযাদুজ্জামান রিয়াদ রাসেল, জাহাঙ্গীর আলম ও মজিবুরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এর মধ্যে চেয়ারম্যানকে তিনদিন এবং বাকী তিনজনকে ২ দুদিন করে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

সংবাদ টি শেয়ার করুন




©2019 Daily Shimanta Barta. All rights reserved.
Design BY PopularHostBD